Health

জেনে নিন গ্রিন টি’র ৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা

গ্রিন টি আপনার স্বাস্থের জন্য কতটুকু উপকারী? গ্রিণ টি খেলে কি হয়? গ্রিন টি’র স্বাস্থ্য উপকারিতা জানতে হলে এই পোস্টটি একবার পড়ে দেখুন।

গ্রিন টি এর মধ্যে বেশ ‍কিছু উপাদান রয়েছে যেগুলো আমাদের স্বাস্থের জন্য খুবই উপকারী। গ্রিন টি এর মধ্যে কিছু প্রাকৃতিক উপাদান থাকে যেগুলো আমাদের শরীরে ম্যাজিকের মতো কাজ করে।

আসুন দেখে নেই গ্রিন টি বা সবুজ চায়ের কিছু স্বাস্থ্য উপকারিতা।

গ্রিন টি’র স্বাস্থ্য উপকারিতা

গ্রিন টি এর বেশ কিছু স্বাস্থ্য উপকারী গুণাগুণ রয়েছে। এর মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বৈশিষ্ট্য নিচে তুলে ধরা হলোঃ

১. গ্রিন টির মধ্যে স্বাস্থ্যকর বায়োএকটিভ উপাদান থাকে

গ্রিন টিতে পলিফেনল নামক এক ধরণের যৌগ থকে যা শরীরের বিভিন্ন ব্যাথা প্রশমণ করে এবং ক্যান্সার প্রতিরোধে সহায়তা করে।

এছাড়া এতে এপিগালোকটেকিন -3-গ্যালেট নামক এক ধরণের যৌগ থাকে যা প্রদাহ হ্রাস, ওজন হ্রাস, এবং হার্ট ও মস্তিষ্কের রোগ প্রতিরোধে সহায়তা করে।

এই উপাদানগুলো শরীরে কোষের ভাঙ্গন থেকে রক্ষা করে এবং বার্ধক্য ও অন্যান্য রোগ নিয়ন্ত্রনে সহায়তা করে।

গ্রিন টিতে অল্প পরিমাণে খনিজ পদার্থ বিদ্যমান থাকে যা স্বাস্থের জন্য উপকারী।

২. গ্রিন টি ব্রেইনকে কার্যকর করে

গ্রিন টি মস্তিষ্কের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে। এক গবেষণায় দেখা গেছে যে নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে স্নায়বিক দূর্বলতা হ্রাস পায় এবং ব্রেইন এক্টিভ থাকে।

গ্রিন টি এর মধ্যে ক্যাফিন নামক এক ধরণের উদ্দীপক উপাদান থাকে যা আমাদের ঝিমিয়ে পড়া ভাব হ্রাস করে শরীরকে চাঙ্গা করে।

ক্যাফিন বা ক্যাফেইন মস্তিষ্কের কার্যকারিতা, মেজাজ, সক্রিয়তা, প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি এবং স্মৃতিধারণ সহ বিভিন্ন দিকে উন্নতি করতে পারে।

গ্রিন টিতে থাকা ’এল-থানাইন’ উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা প্রশমনে সহায়তা করে।

এই ক্যাফেইন এবং এল-থানাইন এর উপস্থিতির কারণে অনেকে কফি চেয়ে গ্রিন টি বেশি পছন্দ করেন।

৩. গ্রিন টি মেদ কমাতে সহায়তা করে

মেদ নিয়ে অনেকের চিন্তার শেষ নেই। আপনার জন্য সেরা একটি সমাধান হতে পারে এই গ্রিন টি।

গ্রিণ টি আপনার শরীরের চর্বি হ্রাস করে বিপাকীয় হার (Metabolic Rate) বাড়িয়ে তুলবে। ক্যাফিইন আপনার চর্বিগুলোকে ভেঙ্গে শরীরকে আরও কর্মক্ষম করে তুলবে।

এক গবেষনায় দেখা গেছে ক্যাফেইন শারীরিক সক্ষমতা ১১% থেকে ১২% পর্যন্ত বৃদ্ধি করতে পারে।

উল্লেখযোগ্য পরিমাণে মেদ কমার ফলে শরীরের ওজনও হ্রাস পেতে পারে।

৪. গ্রিন টি হার্ট সুরক্ষিত রাখে

এক সমীক্ষায় দেখা গেছে গ্রিণ টি হৃদরোগের ঝুকি হ্রাসে সহায়তা করে। এই সমীক্ষায় দেখা গেছে যারা দৈনিক গড়ে পাঁচ কাপ গ্রিন টি পান করেন হৃদরোগে তাদের মৃত্যুর হার অন্যদের তুলনায় কম।

গ্রিন টিতে থাকা পলিফেনল রক্তচাপ কমিয়ে মোটা এবং বেশি ওজনের লোকদের হৃদরোগের ঝুকি হ্রাস করে।

এছাড়া গ্রিন টিতে বিদ্যমান কোটচেনগুলো আমাদের মুখে ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধি হ্রাস করে । ফলে আমাদের দাঁত ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ থেকে সুরক্ষিত থাকে।

৫. গ্রিন টি ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে পারে

গ্রিন টি ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে কি না সে বিষয়ে এখনে দ্বিমত রয়েছে। তবে অনেকেই বলেন যে গ্রিন টি টাইপ-২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধে সহায়তা করে।

জাপানিদের মধ্যে পরিচালিত এক গবেষণায় দেখা গেছে যারা গ্রিন টি পান করেন তাদের টাইপ-২ ডায়াবেটিসের ঝুকি প্রায় ৪২% কম ছিল।

৬. গ্রিন টি ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে

গ্রিণ টি ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে কিনা এ বিষয়ে যথেষ্ট প্রমাণ নেই। তবে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে যে সকল দেশে গ্রিন টির ব্যবহার বেশি সেসকল দেশে কিছু ক্যন্সার কম হয়।

গ্রিন টির মধ্যে বিদ্যমান পলিফেনল ক্ষতিকর আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মি থেকে আপনার শরীরের চামড়াকে সুরক্ষিত রাখতে পারে।

স্বাস্থ্যবিষয়ক কিছু সূত্র স্তন, মূত্রাশয়, ডিম্বাশয়, কোলোরেক্টাল (অন্ত্র), খাদ্যনালী (গলা), ফুসফুস, প্রোস্টেট, ত্বক, পেট ইত্যাদির ক্যান্সার প্রতিরোধে গ্রিন টি সহায়ক বলে মত দিয়েছে।

আরও পড়ুনঃ ২০২১ সালের সেরা ১২টি Blogger Template

তো বন্ধুরা এই ছিল গ্রিন টি’র ৬টি স্বাস্থ্য উপকারিতা। আশাকরি আপনারা পোস্টটি পড়ে উপকৃত হয়েছেন।

আপনার কোনো মন্তব্য থাকলে নিচে কমেন্ট করে জানান। পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করে অন্যদের দেখার সুযোগ করে দিন।

ধন্যবাদ

Abdul Aziz

জানা এবং জানানোর তীব্র ইচ্ছা থেকেই এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা। সব সময় চেষ্টা করি নতুন কিছু জানার। আশা করি সব সময় পাশে থেকে অনুপ্রেরণা যোগাবেন। আমার জন্য দোয়া করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button